বুধবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৬:২১ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ শিরোনাম :
সিলেটের এমসি কলেজ হোস্টেলে গণধর্ষণ: ছদ্মবেশ ধরেও রক্ষা হলোনা ধর্ষক তারেকের নগরী থেকে ৭৯৫ পিস ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার ২ এম.সি কলেজে ধর্ষণের ঘটনা সিলেটের পবিত্রতা কুলষিত হয়েছে———- মাওলানা সামিউর রহমান মুসা সিলেট-কোম্পানীগঞ্জ সড়কে ৪০ বোতল ফেনসিডিলসহ গ্রেপ্তার ৩ এমসি কলেজে ধর্ষণ: রাজন ও আইনুদ্দিনকে গ্রেপ্তারের তথ্য নিশ্চিত করলো র‌্যাব সাংবাদিক কাউসার চৌধুরীর মাতৃবিয়োগে সিলেট প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দের শোক সিলেটের এমসি কলেজ হোস্টেলে গণধর্ষণের অন্যতম নায়ক রাজন গ্রেপ্তার পর্যটন খাত বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বৈদেশিক মুদ্রা আয়ের একটি বড় অবলম্বন….পররাষ্ট্রমন্ত্রী সিলেটের এমসি কলেজ হোস্টেলে গণধর্ষণের ঘটনায় ৪ ধর্ষক গ্রেপ্তার জিডিএফ-ডিকেফ দৃষ্টি প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মধ্যে সিলেটে জেলা প্রশাসনের অনুদান প্রদান
শ্রমিক নেতা রিপন হত্যা : প্রধান আসামী কুখ্যাত ছিনতাইকারী ইজাজুল ও রিমু’র আত্মসমর্পণ

শ্রমিক নেতা রিপন হত্যা : প্রধান আসামী কুখ্যাত ছিনতাইকারী ইজাজুল ও রিমু’র আত্মসমর্পণ

পুলিশ-র‌্যাব’র অভিযান ও এলাকাবাসীর তোপের মুখে বাধ্য হয়ে সিলেট বিভাগীয় ট্যাংক লরির শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মো: ইকবাল হোসেন রিপন হত্যা মামলার প্রধান দুই আসামী কুখ্যাত ছিনতাইকারী ইজাজুল ও রিমু আদালতে আত্মসমর্পণ করেছে। তবে অপর আসামী মুন্না এখনো পলাতক রয়েছে।

সোমবার (২০ জুলাই) দুপুরে প্রধান আসামি ইজাজুল (২৮) ও রিমু (২৮) সিলেট মেট্রোপলিটন ৩য় আদালতে আত্মসমর্পণ করে। এ সময় বাদি পক্ষের আইনজীবী জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আসামীদের চার দিনের রিমান্ড আবেদন করলে, আদালত দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। পরে বিচারক শারমিন খানম নিলা আদালতে আত্মসমর্পণকারী আসামীদেরকে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেন।

পুলিশ জানায়, শ্রমিক নেতা রিপন হত্যার ঘটনায় স্ত্রীর দায়ের করা মামলায় এজহার নামীয় প্রধান আসামি হচ্ছে কুখ্যাত ছিনতাইকারী ইজাজুল ও ২নং আসামি হচ্ছে রিমু। ইজাজুল বরইকান্দিস্থ ১নং রোডের মৃৃত ফরিদের ছেলে ও রিমু একই এলাকার মৃত ফারুক মিয়ার ছেলে।

রিপন হত্যার পর পুলিশ ও র‌্যাব প্রধান আসামী ইজাজুল, রিমু ও তৃতীয় আসামী পলাতক মুন্নাকে গ্রেফতার করতে প্রত্যেকের বাসা বাড়িতে অভিযান চালায়। এক পর্যায়ে বরইকান্দি এলাকাবাসী বৈঠকে বসে আসামীদের পরিবারকে জানান, যদি আসামীরা আত্নসমর্পন বা পুলিশের হাতে তোলে না দেওয়া হয়, তাহলে বাড়িঘর থেকে উচ্ছেদ’সহ কঠোর হুশিয়ারী করেন।

পরিস্থিতি খারাপ দেখে ইজাজুল ও রিমু  সোমবার সকালে গোপনে আদালত পাড়ায় প্রবেশ করে। তারা তাদের আত্নীয় স্বজনদের মাধ্যমে আইনজীবী নিয়োগ করে মামলার সকল কাগজপত্র প্রসেসিং করে আদালতে জামিন চেয়ে জমা দেয়। খবর পেয়ে মামলার বাদি পক্ষের আইনজীবীও মামলার বাদিকে নিয়ে আদালতে উপস্থিত হন।

বিষয়টি চারিদিকে জানাজানিরপূর্বেই কৌশলে আদালতে প্রবেশ করে ইজাজুল ও রিমু। এ সময় তাদের সাথে বেশ কিছু সহযোগী ছিলেন বলে জানা গেছে। তারা দীর্ঘক্ষণ আদালতপাড়ায় ঘুরাঘুরি করে খুশ মেজাজে আদালতে আত্নসমর্পন করে। ইজাজুল ও রিমু জাতীয়তাবাদি স্বেচ্ছাসেবকদলের সাথে সম্পৃক্ত থাকায় কয়েকজন স্বেচ্ছাসেবকদল নেতাকে আদালত পাড়ায় দেখা গেছে বলে জানা গেছে।

এদিকে রবিবার (১৯ জুলাই) দক্ষিণ সুরমা থানা পুলিশ শ্রমিক নেতা রিপন হত্যা মামলার এজহারভুক্ত আসামি সেবুল হাসানকে (৩৮) মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল হানিফ বাস কাউন্টারের সামনে থেকে ঢাকা পালিয়ে যাওয়ার সময় গ্রেফতার করে। সোমবার (২০ জুলাই) পুলিশ তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করে। সে দক্ষিণ সুরমা থানাধীন বরইকান্দিস্থ গাঙ্গু ১নং রোডের লিলু মিয়ার ছেলে।

শ্রমিক নেতা রিপন হত্যা মামলায় প্রধান আসামিসহ দুজনের আত্মসমর্পণের খবর পেয়ে তাদের ফাঁসির দাবিতে শ্রমিকরা প্রায় ২০ মিনিট জেলা পুলিশের কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ করে। পরে একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তাদেরকে তাড়িয়ে দেয়।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

Leave a Reply




© All rights reserved © SYLHETUKNEWS.COM
Design BY Web Home BD
SUKNEWS