মঙ্গলবার, ৩০ নভেম্বর ২০২১, ০৬:৫০ অপরাহ্ন

সর্বশেষ শিরোনাম :
কাতারে জালালাবাদ এসোসিয়েশনের কমিটি গঠন নিয়ে বিতর্ক: একাংশের প্রত্যাখ্যান

কাতারে জালালাবাদ এসোসিয়েশনের কমিটি গঠন নিয়ে বিতর্ক: একাংশের প্রত্যাখ্যান

জয়নাল আবেদীন আজাদ, কাতার থেকে: কাতারে সদ্য ঘোষিত জালালাবাদ এসোসিয়েশনের ১৮১ সদস্যবিশিষ্ট কমিটি ঘোষণা নিয়ে বিরোধ এখন তুঙ্গে। ঘোষিত কমিটি মানতে নারাজ সিনিয়র নেতা এবং সদস্যবৃন্দ। কমিটি বাতিল করে নির্বাচনের মাধ্যমে সকলের সমন্বয়ে নতুন কমিটি গঠনের আহ্বান জানিয়েছেন সংগঠনের একাংশ। এর দাবীতে একটি সভাও করেছেন এসোসিয়েশনের সদস্যরা। সূত্রে জানা যায়, সম্প্রতি ১৮১ সদস্য বিশিষ্ট নতুন কমিটি ঘোষণা হয় কাতারস্থ সিলেটের ঐতিহ্যবাহী সামাজিক সংগঠন জালালাবাদ এসোসিয়েশনের। গত ২৯ মে বুধবার কাতারের একটি রেস্তোরায় সাধারণ সভা ও ইফতার মাহফিলে নতুন কমিটি ঘোষণা করা হয়। মোঃ কফিল উদ্দিনকে সভাপতি, মাহবুবুর রহমান চৌধুরীকে সাধারণ সম্পাদক ও আবু তাহের চৌধুরীকে সাংগঠনিক সম্পাদক করে ১৮১ সদস্য বিশিষ্ট কার্যকরী কমিটির ঘোষণা দেন কমিটির ঘোষণা দেন সদ্য সাবেক সভাপতি ও বর্তমান উপদেষ্টা নজরুল ইসলাম সিসি। এই কমিটি গঠন প্রক্রিয়াকে বিতর্কিত আখ্যা দিয়ে ঘোষিত কমিটি বাতিলের দাবী জানিয়েছেন এসোসিয়েশনের একটা বৃহৎ অংশ। তারা পৃথক সভা করে উপরোক্ত দাবী জানান। এসোসিয়েশনের সহ-সভাপতি আবিদুর রহমান ফারুকের সভাপতিত্বে ও সাংগঠনিক সম্পাদক লোকমান আহমদের সঞ্চালনায় সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, সাবেক নির্বাচন কমিশনার সৈয়দ আনা মিয়া, এসোসিয়েশনের আজীবন সদস্য শরিফুল হক সাজু, সহ-সভাপতি শাহজাহান মিয়া, সহ-সভাপতি আব্বাসউদ্দিন, সহ-সভাপতি খছরু মিয়া পংকি, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অলিদ আহমদ সেলিম, শফিউল আলম মানিক, সিনিয়র সদস্য রমুজ আলী, হোসেন আহমদ কাজল, আব্দুল মান্নান, মিসবাহ উদ্দিন চৌধুরী চিনু, মৌলানা মোহাম্মদ আলী, রিয়াজ উদ্দিন, আবুল হাসান, আব্দুল হান্নান, সৈয়দ রমিজ আলী, সুনা মিয়া স্বপন, নাজমুল হক, মইজ উদ্দিন, সাইন উদ্দিন রুয়েল, কয়েস আহমদ, জায়েদুর রহমান, আব্দুস সালাম, মির্জা ছয়েফ, জয়নাল আবেদীন, রিয়াজ হাসান, মজম্মিল আলী, জুবের আহমদ আসিফ সহ প্রায় দেড় শতাধিক সদস্য। সভায় জালালাবাদ এসোসিয়েশনের সদস্যের ঐক্য ও মুসলিম উম্মাহের শান্তি সমৃদ্ধি কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়। এব্যাপারে জালালাবাদ এসোসিয়েশনের নব নির্বাচিত সভাপতি মোঃ কফিল উদ্দিন বলেন, কমিটি গঠনের সময় আমাকে জোর করে সভাপতির পদ দেয়া হয়। তখন সকল সদস্যদের মতামত নিয়ে এবং সিলেট বিভাগের প্রত্যেক জেলা থেকে ১০ জন সদস্য নিয়ে একটা কমিটি হয়। আর ঐ কমিটির সদস্য সভাপতি সাধারণত সম্পাদক, সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত করেন। এই প্রক্রিয়াতে আমি সভাপতি হই। এতে যদি আমার সদস্যরা বা আমাকে যারা সভাপতি বানিয়েছেন তারাই যদি আবার পুনরায় কমিটি চায় তাহলে আমি এসোসিয়েশনের বৃহত্তর স্বার্থে পদত্যাগ করবো। তিনি আরো বলেন, আমরা অনেকেই রাজনীতির সাথে জড়িত। আমাদের সবার একটা রাজনৈতিক পরিচয় আছে। আমি আওয়ামীলীগ করি। কিন্তু লোকমান আহমেদ ও শরিফুল হক সাজু বিএনপি করেন। কিন্তু আমরা যখন একটা সামাজিক সংগঠন করি তখন আমাদেরকে শুধু সামাজিক সংগঠনের নেতা মনে করতে হবে। আমাদেরকে হিংসা বিদ্ধেষ ভুলে ঐক্যবদ্ধ থাকার মনমানসিকতা নিয়ে জালালাবাদ এসোসিয়েশনে কাজ করতে হবে। এসোসিয়েশনের সদস্যদের মতামত আমার কাছে গুরুত্বপূর্ণ। উল্লেখ্য- কাতারে বাংলাদেশী কমিউনিটির উন্নয়ন এবং সামাজিক কাজকর্মের মাধ্যমে জালালাবাদবাসীর ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করার নিমিত্তে ১৯৮৪ সালে যাত্রা শুরু করে সর্বদলীয় এই সামাজিক সংগঠনটি। ইতিমধ্যে বিভিন্ন সামাজিক কাজকর্মের মাধ্যমে এসোসিয়েশনে কাতারে এবং বাংলাদেশে ব্যাপক প্রশংসা কুড়িঁয়েছে। পাশাপাশি কাতার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে অর্জন করেছে বিভিন্ন ধরনের সম্মাননা স্মারক। এসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে নিয়মিত আয়োজন করে যাচ্ছে বিভিন্ন ধরনের খেলাধুলা, বনভোজন সহ বিভিন্ন জনবান্ধব কর্মসুচী। এছাড়া এসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে কাতারে আগত প্রবাসীদের বিভিন্ন ধরনের সহযোগিতা প্রধান করা হচ্ছে। বিভিন্ন সময় কমিটি গঠন নিয়ে বিতর্ক চললে বর্তমানে এসোসিয়েশনটি ভালভাবেই চলছিল। কিন্তু এবার কমিটি গঠন প্রক্রিয়ায় বিতর্ক থাকার ফলে আবারো বিরোধের মুখে পড়েছে কাতারে অবস্থানরত সিলেটীদের সবচেয়ে বড় এই সংগঠনটি।

 159 বার পঠিত

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

Leave a Reply




© All rights reserved © SYLHETUKNEWS.COM
Design BY Web Home BD
SUKNEWS